• আপডেট টাইম : 08/02/2024 07:45 PM
  • 113 বার পঠিত
  • শরীফুল ইসলাম,কুষ্টিয়া
  • sramikawaz.com

কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার আল্লারদর্গার বেসরকারী হাসপাতাল আনোয়ারা বিশ্বাস মা ও শিশু হাসপাতাল থেকে চুরি যাওয়া ৩ দিনের নবজাতক শিশু দু’দিনেও উদ্ধার হয়নি। বুধবার দুপুর পৌনে ২টার দিকে শিশু চুরির এ ঘটনা ঘটে। একমাত্র সন্তানকে হারিয়ে পিতা-মাতা ও আত্মীয় ¯^জনরা বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছেন। তারা নিজেরাও বিভিন্ন স্থানে সন্ধান চালিয়ে যাচ্ছেন।
ভেড়ামারা উপজেলার ধরমপুর ইউনিয়নের মহিষাডরা গ্রামের মো. দিপু আলীর স্ত্রী রিয়া খাতুন গত ৫ ফেব্রæয়ারী দুপুরে সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে একটি পুত্র সন্তারের জন্ম দেয়। বুধবার দুপুরে প্রসূতির মা রহিমা খাতুন শিশুটিকে কোলে নিয়ে হাসপাতালের প্রসূতির কক্ষে অবস্থানকালে বোরকা পরা অপরিচিত একজন নারী নিজেকে নিঃসন্তান দাবী করে নবজাতককে কোলে নিতে চাই। পানির প্রয়োজন হওয়ায় সরল বিশ্বাসে শিশুটিকে অপরিচিত ওই নারীর কোলে দিয়ে রহিমা খাতুন পানি আনতে গেলে শিশুটিকে নিয়ে ওই নারী হাসপাতাল থেকে দ্রুত পালিয়ে যায়। রহিমা খাতুন পানি নিয়ে ফিরে এসে নবজাতক সন্তানকে না পেয়ে কান্নাকাটি শুরু করলে হাসপাতালের লোকজন ও তাদের ¯^জনারা ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। পরে হাসপাতালের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে সনাক্ত করা হয় বোরকা পরা ওই নারী শিশুটিকে নিয়ে হাসপাতালের বাইরে চলে যাচ্ছে। খবর পেয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশও ঘটনাস্থলে ছুটে যান এবং চুরি যাওয়া শিশুটিকে উদ্ধারে জোর তৎপরতা চালান।
এ বিষয়ে আনোয়ারা বিশ্বাস মা ও শিশু হাসপাতালের কর্তব্যরত ম্যানেজার আব্দুর রাজ্জাক বলেন, এ ধরনের ঘটনা হাসপাতালে এই প্রথম। নবজাতক শিশুটি তার নানির নিকট থেকে অপরিচিত এক মহিলা চুরি করে নিয়ে গেছে। তবে তাদের আত্মীয় ¯^জনের কাছে থেকে কেউ যদি তাদের বাচ্চা নিয়ে চলে যায় তাহলে আমাদের কিছু করার থাকেনা। তারপরও চুরি যাওয়া শিশুটি উদ্ধারে হাসপাতাল কতৃপক্ষ বিভিন্ন স্থানে অনুসন্ধান চালাচ্ছে।
শিশু চুরির বিষয়ে দৌলতপুর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় থানায় এখনও (এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত) কেউ অভিযোগ না দিলেও নবজাতক শিশুটিকে উদ্ধারে পুলিশের বিভিন্ন বিভাগ কাজ করছে ও তৎপর রয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...